মেনু নির্বাচন করুন

২৯নং পশ্চিম কাচিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

  • সংক্ষিপ্ত বর্ণনা
  • প্রতিষ্ঠাকাল
  • ইতিহাস
  • প্রধান শিক্ষক/ অধ্যক্ষ
  • অন্যান্য শিক্ষকদের তালিকা
  • ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা (শ্রেণীভিত্তিক)
  • পাশের হার
  • বর্তমান পরিচালনা কমিটির তথ্য
  • বিগত ৫ বছরের সমাপনী/পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল
  • শিক্ষাবৃত্ত তথ্যসমুহ
  • অর্জন
  • ভবিষৎ পরিকল্পনা
  • ফটোগ্যালারী
  • যোগাযোগ
  • মেধাবী ছাত্রবৃন্দ

বিদ্যালয়টিতে টয়লেট ও টিউবয়েল এর ব্যবস্থা না থাকায় শিক্ষার্থীদের ভোগান্তীতে পোহাতে হয়। অত্র প্রতিষ্ঠানের টয়লেট ও টিউবয়েল এর প্রয়োজন রয়েছে।

1988

উক্ত প্রতিষ্ঠানটি ভবানীপুর গ্রামে অবস্থিত ছিল। সেখানে নদীর ভাঙনের ফলে বিদ্যালয়টি নধীর গর্ভে বিলিন হয়ে যায়। তারপর ২০১২ সালে কাচিয়া সাহামাদার গ্রামে ২নং ওয়ার্ডে নতুন করে ভবন নির্মান করা হয়। বিদ্যালয়টি ৩য় তলা বিশিষ্ট। ২য় তলা পর্যন্ত সম্পূর্ণ করা হয়েছে। বর্তামেন অত্র প্রতিষ্ঠানটি ৩৩শতাংশ জমির মধ্যে ১০ শতাংশের মাঝে স্থাপিত। বাকী জমি অনত্র খালি জায়গা হিসেবে ফেলে রাখা হয়েছে ভবিষ্যতে মাঠ আকারে তৈরীর জন্য। বিদ্যালয়টি পাঁকা ভবন হিসেবে নতুন তৈরী করা হয়েছে। বিদ্যালয়টির সামনে কোন খেলা মাঠ নেই কিন্তু ভবিষ্যতে মাঠের জন্য সহযোগীতা জেলা প্রশাসক ও নির্বাহী অফিসার বরাবর দরখাস্ত অবস্থায় রয়েছে। অত্র প্রতিষ্ঠানটি পূর্বে ভবানীপুর স্থাপিত হয়।

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল
রাবেয়া বেগম 01934179970 uisckhokon@gmail.com

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল
আকলিমা বেগম 01785930410 uisckhokon@gmail.com
রুজিনা আক্তার 01775943795 uisckhokon@gmail.com
কামরুন নাহার 01734413103 uisckhokon@gmail.com
নাজমা বেগম 01768177027 uisckhokon@gmail.com

শিশু শ্রেনী : ১০ জন

১ম শ্রেনী : ১১ জন

২য় শ্রেনী : ১৯ জন

৩য় শ্রেনী : ২১ জন

৪র্থ শেন্রী : ১৭ জন

৫ম শ্রেণী : ২২ জন

100%

উক্ত ত্য প্রক্রিয়াধীণ রয়েছে।
 

২০১৩ সালে ৯ জন

২০১৪ সালে ১৩জন

২০১৫ সালে ৮ জন

২০১৬ সালে ১৮ জন

২০১৭ সালে ২০ জন

 

উক্ত প্রতিষ্ঠানে সরকারী বৃত্তি এখনও কেহ পায় না ভবিষ্যতে পাওয়ার জন্য চেষ্টা চলছে।

বিদ্যালয়টি স্থাপিত হওয়ার ফলে শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার মান বৃদ্ধি পেয়েছে। এলকার উন্নয়ন হয়েছে। আমাদের প্রতিষ্ঠান এর সুনাম রয়েছে।

প্রাথমিক শিক্ষার গুরুত্ব উপলব্ধি করে বর্তমান সরকার সমতাভিত্তিক ও মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিতকরণে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। শিক্ষক:শিক্ষার্থী এবং শিক্ষার্থী:শ্রেণিকক্ষের অনুপাত হ্রাসকরণের লক্ষ্যে ভোলা জেলার সদর উপজেলায় কাচিয়া ইউনিয়নে ৫ জন শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে পুল ও প্যানেল থেকে শিক্ষক নিয়োগের অত্র উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকট হ্রাস পেয়েছে। উপজেলা শিক্ষা অফিসার, সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার,  প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক, ম্যানেজিং কমিটি ও এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গের পরিশ্রমে শতভাগ ভর্তি নিশ্চিত হয়েছে। নিরাপদ পানি ও স্যানিটেশন ব্যবস্থার উন্নয়ন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে চাহিদার ভিত্তিতে বিদ্যালয় পর্যায়ে নলকূপ স্থাপনসহ ওয়াশব্লক নির্মাণ করা হয়েছে। মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে উপজেলার সকল শিক্ষার্থীর মাঝে ৩১/০১/২০১৭ ইং তারিখের মধ্যে  বিনামূল্যে নতুন বই বিতরণ করা হয়েছে। তাছাড়া, 5 বছর মেয়াদী প্রাথমিক শিক্ষা চক্র সমাপনের লক্ষ্যে উপজেলার সকল শিক্ষার্থীর মাঝে রূপালী ব্যাংক শিওর ক্যাশের মাধ্যমে উপবৃত্তির অর্থ বিতরণ করা হচ্ছে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্টুডেন্ট কাউন্সিল এবং কাব দল গঠন করা হয়েছে।  তাছাড়া, প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের জন্য মিড-ডে মিল চালু করা হয়েছে। বিদ্যালয় পর্যায়ে (SLIP)প্রকল্প পরিকল্পনা ও বাজেটের আলোকে কাজ সমাপ্ত করে এর সঠিক মনিটরিং মূল্যায়ন করা হয়েছে। প্রাক প্রাথমিক শিশুদের ঊৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে গত ৩ বছর ধরে তাদের রুমগুলো সু সজ্জিত করা হয়েছে। ২০০৯ সাল থেকে নিয়মিত ভাবে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা গ্রহণ করা হচ্ছে। ২০১২ সাল হতে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্ণামেন্ট পরিচালনার লক্ষ্যে অত্র উপজেলার সর্ব পর্যায়ের জনগোষ্টী আন্তরিকতার পরিচয় দিয়ে আসছে। প্রাথমিক শিক্ষার লক্ষ্য “শিশুর সার্বিক বিকাশ” এর দিকে লক্ষ‍্য  রেখে প্রতিটি বিদ্যালয়ে আন্তঃ প্রাথমিক  ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা সু-সম্পন্ন হয়েছে।   শিক্ষককে ১২ দিনব্যাপী আইসিটি প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে এবং 23 টি বিদ্যালয়ে ল্যাপটপ ও মাল্টিমিডিয়া দেয়া হয়েছে যা দিয়ে ডিজিটাল কন্টেন্ট ব্যবহারের মাধ্যমে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান করা হচ্ছে। শিক্ষকদের পেনশন সহজীকরণের মাধ্যমে দ্রত নিস্পত্তি করা হয় । দপ্তর ও বিদ্যালয়ে জাতীয় শুদ্ধাচার নীতিমালা বাস্তবায়নের মাধ্যমে কার্যপদ্ধতি ও সেবার মানোন্নয়ন হচ্ছে। 

১. ভবিষ্যতে বিদ্যালয়টি পড়ালেখার মান উন্নয়ণ করা।

২. ছাত্র ছাত্রীদের উন্নয়নের জন্য শিক্ষকদের উদ্যোগ এবং গন্যমান্য ব্যক্তি ও বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির উদ্দেগে আদর্শ বিদ্যালয় হিসেবে গড়ে তোলা।

৩. ছাত্র-ছাত্রীদের পড়ালেখা ১০০% নিশ্চিত করা।

৪.  সকল শিশুর মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করে প্রাথমিক শিক্ষার লক্ষ্য বাস্তবায়ন।

৫. প্রাথমিক শিক্ষার সুযোগ সম্প্রসারণ ও গুণগত মান উন্নয়নের মাধ্যমে সকল শিশুর জন্য একীভূত ও মানসম্মতপ্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিতকরণ।

সাহামাদার, পো”: পরাণগঞ্জ, ওয়ার্ড: ০২, ভোলা সদর, ভোলা।

১ম শ্রেনী : ১০ জন

২য় শ্রেনী : ১২ জন

৩য় শ্রেনী : ৮ জন

৪র্থ শেন্রী : ৬ জন

৫ম শ্রেণী : ১০ জন



Share with :

Facebook Twitter